university admission
বই ডাউনলোড বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্ততি কে একটা যুদ্ধ বলা চলে। লাখ প্রতিদ্বন্দ্বীকে মেধার হাতিয়ার দিয়ে ঘায়েল করে নিজের অবস্থান ধরে রাখতে হয়। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে হলো বিষয়টিকে খুব গুরুত্বের সাথে নিতে হব। বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতির ক্ষেত্র সফল না হওয়া পর্যন্ত চেষ্টা করে যাব এমন একটা মনোভাব থাকতে হবে। এ তো গেল নীতি কথা এখন বলি কাজের কথা, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ক্ষেত্র ম্যাথ একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কিছু ক্ষেত্রে ম্যাথ তোমার যুদ্ধে সফলতা এনে দিতে পারে। বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতির ক্ষেত্রে ম্যাথ নিয়ে যেসব কমন প্রশ্ন মাথায় আসে তা নিয়ে আজকে আলোচনা করব। ম্যাথ নিয়ে যেসব প্রশ্ন থাকতে পারে তা আজকে উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব।

কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয়েরর কোন ইউনিটে ম্যাথ আসে?

উত্তরটা দেওয়া আমার পক্ষে একটু কঠিন। কারন আমি সব বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দেইনি। আর যতটুক জানি যতটুক উওর দেওয়ার চেষ্টা করছি।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ, আইবিএ, সমাজ বিজ্ঞান ইউনিট (বি ইউনিট)

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সি ইউনিট (ব্যবসায় অনুষদ)

বিউপির বিবিএ

এছাড়াও আরো কিছু বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় ম্যাথ আসে।

ম্যাথ এর Preparation কিভাবে নিবেন?

ম্যাথ না বুঝে মুখস্ত করার কোন বিষয় না। আপনাদের যাদের ম্যাথ এর বেসিক বেশি দূর্বল তারা চাইলে প্রথমে অষ্টম ও নবম-দশম শ্রে্ণীর সাধারণ গনিত এর বোর্ডের বই থেকে অনুশীলন করতে পারেন। সবগুলি চ্যাপ্টার না। অষ্টম শ্রেণী এর পাটিগণিত অংশ থেকে শতকরা, সুদ-কষা, ভগ্নাংশ সহ আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ চ্যাপ্টার গুলি দেখে নিতে পারেন। আর নবম-দশম শ্রেণীর বই থেকে সূচক, অনুপাত-সমানুপাত সহ আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ চ্যাপ্টার গুলি দেখে নিতে পারেন। এগুলো অনুশীলন করলে আপনাদের ভার্সিটি এর Question Pattern সর্ম্পকে কোনো আইডিয়া হবে না।

কোন বই থেকে পড়ব

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার জন্য বিভিন্ন গাইড বই পাওয়া যায় । অনেক কোচিং আছে যারা কিনা ম্যাথের জন্য আলাদা বই প্রকাম করে। যেমন: UCC এর Math Bulletin এবং Saifurs Math । আপনি এই দুইটি বইয়ের যেকোন একটি ফলো করতে পারেন। সহজেই বুঝার সুবিধার্থে Math Bulletin ও Saifurs Math এই দুইটা বইয়েই অংকগুলির ব্যাখ্যা সহ সমাধান দেওয়া আছে। আপনি যে বই Follow করেন না কেন A টু Z শেষ করতে হবে। একটা টপিক ও বাদ দেওয়া যাবে না। প্রত্যেকটা অংক বুঝে বুঝে অনুশীলন করতে হবে।

Saifurs Math বইটি ডাইনলোড করুন   

পরীক্ষায় ম্যাথ কিভাবে উত্তর দিবেন

একেক জনের পরীক্ষা দেওয়ার স্টেটেজী একেক রকম । কেউ প্রথমে সহজ প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করে । আবার কেই শেষে । আমার মতে পরীক্ষার শুরুর দিকেই কঠিন প্রশ্নের উত্তর দেওয়া উচিত । মানসিক দক্ষতা ও ম্যাথগুলো প্রথমে উত্তর দেওয়া উচিত। কারণ প্রথম দিকে সময় নিয়ে কোন মানসিক চাপ থাকে না । আর মস্তিস্ক অনেক চিন্তামুক্ত থাকে। তবে খুব রিলাক্সে উত্তর দিতে গিয়ে সময় নষ্ট করা যাবে না ।ম্যাথ Timely সলভ করা অনেক বড় একটা ফ্যাক্ট। তাই সবসময় খেয়াল রাখবেন কোনো ম্যাথ সলভ করতেই যেন বেশি সময় যেন ব্যয় না হয়। এজন্যই প্রাকটিস করতে হবে। আপনি পরীক্ষার আগে যত বেশি প্রাকটিস করবেন পরীক্ষার সময় তত তাড়াতাড়ি Solve করতে পারবেন।

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *