২০ বিশ্ববিদ্যালয় মিলিয়ে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা; প্রাথমিক আবেদন ফ্রি

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি শীর্ষ সংবাদ

শিক্ষাঃ করোনা পরিস্থিতির স্বাভাবিক হওয়ার পর সরকার যখন বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলে দেবে তখন গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা কমিটি। আর যোগ্য শিক্ষার্থীদের দ্বিতীয় ধাপে ৫০০ টাকার মাধ্যমে আবেদন করতে হবে।

এতে পরীক্ষা হবে তিনটা ইউনিট তথা বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগে।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) ২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বৈঠক শেষে সংবাদ মাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন।

গুচ্ছ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নব্যাংক

তিনি বলেন, আজকের বৈঠকে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর পরীক্ষা আয়োজনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রথমবার শিক্ষার্থীরা বিনামূল্যে আবেদন করতে পারবেন। তবে দ্বিতীয় ধাপের আবেদন করতে ৫০০ টাকা লাগবে।

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের যোগ্যতা-

#বিজ্ঞান বিভাগের জন্য জিপিএ-৭ তবে যেকোনো পরীক্ষায় ৩ এর নিচে নয়।
#মানবিক বিভাগের জন্য জিপিএ-৬ তবে যেকোনো পরীক্ষায় ৩ এর নিচে নয়।
#বাণিজ্য বিভাগের জন্য জিপিএ-৭ তবে যেকোনো পরীক্ষায় ৩ এর নিচে নয়।
গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার গাইড কিনতে ও ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন

পরীক্ষার মানবন্টন-

#বিজ্ঞান বিভাগ
রসায়ন (২০)
পদার্থ (২০)
গনিত/জীববিজ্ঞান/আইসিটি(যেকোনো দুইটি দাগাতে হবে) – ২০*২=৪০
বাংলা ১০, ইংরেজি ১০

#মানবিক বিভাগ
বাংলা- ৪০
ইংরেজি- ৩৫
আইসিটি- ২৫

#বাণিজ্য বিভাগ
বাংলা(১৩) ও ইংরেজি(১২) – ২৫
আইসিটি- ২৫
হিসাব বিজ্ঞান- ২৫
ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা- ২৫

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ২০টি বিশ্ববিদ্যালয় হলো জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাকা), ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (কুষ্টিয়া), শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (সিলেট), খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় (খুলনা), হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (দিনাজপুর), মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (টাঙ্গাইল), নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোয়াখালী), কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুমিল্লা), জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় (ময়মনসিংহ), যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (যশোর), বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (রংপুর), পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (পাবনা), বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (গোপালগঞ্জ), বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় (বরিশাল), রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রাঙ্গামাটি), রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ (সিরাজগঞ্জ), বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি (গাজীপুর), শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় (নেত্রকোনা), বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (জামালপুর) এবং পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (পটুয়াখালী)।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *